গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি :: ফ্রান্সে মহানবী(সাঃ) এর ব্যঙ্গাত্নক কাটুন প্রকাশের প্রতিবাদে সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার হেতিমগঞ্জ বাজারে বিশাল প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে । মাাদারিসে কওমিয়া ও তাওহিদী জনতার উদ্যোগে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে সর্বস্তরের তৌহিদী জনতার ঢল নামে।
শুক্রবার ৩০ অক্টোবর বাদ জুমা স্বতস্ফুর্ত মানুষ মিছিলের পর মিছিল নিয়ে নেমে আসে রাস্তায় । প্রচন্ড রোদ উপেক্ষা করে ছোট-বড়, বৃদ্ধ-যুবক সকল শ্রেণির মানুষের ঢল নামে সড়ক থেকে গ্রামীন জনপদে । বিভিন্ন পাড়া মহল্লা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল এসে সমবেত হয় সভা স্থলে। ”মহানবী(সা:) এর অবমাননা, সইবে না মুসলমান” স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয় হেতিমগঞ্জের আকাশ বাতাস। মিছিল, প্রতিবাদ স্লোগান আর হাজারো তৌহিদী জনতায় হেতিমগঞ্জ পরিনত হয় বিক্ষোভের নগরীতে।
হেতিমগঞ্জ বাজার পয়েন্টে সমাবেশ শেষে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে হেতিমগঞ্জ, মোল্লাগ্রাম, মছকাপুর, কতোয়ালপুর, আয়তাবাদ, নিমাদল, কারিপার, নিজতফা, হুতারোচক, শ্রীবহর, কুনাচর, বাউসি, জাঙ্গালহাটা, রাম্পা, দিঘলটিকি, কিসমত মাইজভাগ, কায়স্থগ্রাম, লরিফর, হাজীপুর, ঘনশ্যাম, এওলাটিকর, ইজরাপাড়া, রফিপুর, হিলালপুর, পাঁচ মাইল, শ্রীরামপুরসহ আশপাশের গ্রাম থেকে হাজারো তৌহিদী জনতা সমাবেশে অংশ গ্রহণ করেন।

বাদ জুমা পাড়া মহল্লার মসজিদ থেকে মিছিল সহকারে মানুষ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেন। বেলা ২টার মধ্যে পুরো হেতিমগঞ্জ বাজার লোকে লোকারণ্য পরিনত হয়। হাজারো জনতার স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয় আকাশ বাতাস। বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, বিশ্বনবী ও শেষ নবী হজরত মুহাম্মদ (সা:) সমগ্র বিশ্বমানবতার জন্য প্রেরিত হয়েছেন। সাদা-কালো আর জাতি-ধর্ম-বর্ণ-সম্প্রদায় নির্বিশেষে মানবজাতির কল্যাণেই তার আগমন। তিনি কোনো অঞ্চলভিত্তিক অথবা কোনো নির্দিষ্ট ভাষাগোষ্ঠীর জন্য প্রেরিত হননি বরং মহান সত্তার পক্ষ থেকে সমগ্র বিশ্বমানবতার জন্য দয়ার প্রতীক হিসেবে তাকে ঘোষণা করেছেন মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন বিশ্ববাসীর জন্য রহমত স্বরুপ রাসূল (সা:) কে দুনিয়ায় প্রেরণ করেছেন।
তারা বলেন, সরদারে দু আলম, বিশ্ববাসীর মুক্তির দূত জনাবে রাসূলুল্লাহ (সা:) এর প্রতি ফ্রান্সে ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন চরম ধৃষ্টতাপূর্ণ ও অগ্রহনযোগ্য। মহানবী(সা:) এর অবমাননা কোন মুসলমান সহ্য করবে না। ফ্রান্সেকে অবিলম্বে এই ধৃষ্টতাপূর্ণ কাজের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে। বক্তারা ফ্রান্সের উৎপাদিত পণ্য বর্জনকে ইমানী দায়িত্ব হিসেবে উল্লেখ করে সকলকে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের আহবান জানান।


বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভার আহবায়ক বরায়া বাটুলগঞ্জ মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা লুৎফুর রহমান সভাপতিত্বে ও হিসাব রক্ষক হাফিজ মাওলানা শরিফ আহমদ শাহান ও মুফতি মামুন মুজাহিদের যৌথ সঞ্চালনায় কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেন, জামেয়া ইসলামিয়া বরায়া শ্রীরামপুর মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা জিলাল আহমদ, জামেয়া ইসলামিয়া মতিনিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা শায়েখ আব্দুস সালাম, বিশিষ্ট রাজনীতিবীদ এডভোকেট মাওলানা রশিদ আহমদ, এডভোকেট এমএ রকিব, হাজীপুর লরিফর এফ রহমান হাফিজিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল বাছিত, বরায়া বাটুলগঞ্জ মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মুফতি আবুল কালাম, জামেয়া ইসলামিয়া মতিনিয়া মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মাওলানা বশির আহমদ, জামেয়া ইসলামিয়া বরায়া শ্রীরামপুর মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মাওলানা নুরুল হক, গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ইউনুছ চৌধুরী,বিশিষ্ট মুরব্বী গোলাম আযম শাইস্তা, মাওলানা জমির উদ্দিন, আতাউর রহমান, ফয়জে জলিল আতহারিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা নুরুল আমিন, হেতিমগঞ্জ নবাবী মসজিদের পেশ ইমাম ও খতিব মাওলানা মারুফ আহমদ, কায়স্তগ্রাম হযরত শাহজালাল (রহ:) কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা সাইফুর রহমান, মোল্লাগ্রাম নতুন মসজিদের ইমাম মাওলানা এনায়াত উল্লাহ, হেতিমগঞ্জ চৌমুহনী বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মালিক মলিক, হেতিমগঞ্জ চৌমুহনী বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমদ সেলিম, ফুলবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এডভোকেট মামুন আহমদ রিপন, খয়রুগঞ্জ মসজিদ মার্কেটের সভাপতি আব্দুল গফফার, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন, শামসুল ইসলাম আনা, হিলালপুর গ্রামবাসীর পক্ষে সাকের ইসলাম, মানবাধিকার কর্মী সুজন আহমদ খান, মেরাজুল ইসলাম সাবুল, হাফিজ মাওলানা মুত্তাকি হাদি, সাবেক ইউপি সদস্য শরিফ উদ্দিন, সাংবাদিক আজিজ খান, আব্দুল মুমিত জোয়ারদার, মামুনুর রশিদ মামুন, নজরুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবক ইসমাইল হোসেন চৌধুরী, বরায়া বাটুলগঞ্জ মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা লোকমান আহমদ, মাওলানা আব্দুর রহমান, হাফিজ মুজাহিদুল ইসলাম, জামেয়া ছায়িদিয়া পশ্চিমভাগ মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা শিব্বির আহমদ, হাফিজ মিসবাহ উদ্দিন, এম. মামুন, হেতিমগঞ্জ চৌমুহনী বাজার বণিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক জামাল উদ্দিন, ইসমাঈল হোসেন শিপার, সাইদুল ইসলাম, শফি আহমদ খান, ফজল আহমদ, মনসুর আলম, নুরুল আমিন, জনতার দাবী বৃহত্তর গোলাপগঞ্জের আহবায়ক এম. এ সামাদ, রুহুল আমিন রাহেল, সামাদুর রহমান অপু, মুশাহিদ আহমদ ইমন, কামিল আহমদ তালুকদার, জুনেদ আহমদ রাফি, শাকিল আহমদ সাকেল, মাহিন রহমান প্রমুখ। বিক্ষোভ মিছিল শেষে আহবায়ক বরায়া বাটুলগঞ্জ আরাবিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার মাওলানা লুৎফুর রহমানের দোয়ার মাধ্যমে কর্মসূচি সমাপ্ত হয়।
প্রতিবাদ সভা পরবর্তীতে বরায়া বাটুলগঞ্জ আরাবিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার আল-ফালাহ ছাত্র সংসদ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এর কুশপত্তিলিকা দাহ করে।
এদিকে শুক্রবার বাদ জুম’আ গোলাপগঞ্জ পৌর সদরে হেফাজতে ইসলাম গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার ও স্থানীয় তৌহিদী জনতার উদ্দ্যােগে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে হেফাজতে ইসলাম গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি শেখ মাওলানা আব্দুল মতিনের সভাপতিত্বে ও হাফিজ মাওলানা আব্দুল গাফফারের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, গোলাপগঞ্জ পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল, হেফাজতে ইসলাম গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সহ সভাপতি হাজী শামসুদ্দিন বানীগাজী, পৌর শাখার সভাপতি মাওলানা ইকবাল হোসাইন, মাওলানা মাহফুজুর রহমান, মাওলানা মুক্তার আহমদ, মাওলানা আলী আহমদ, মাওলানা আব্দুস সালাম, সফির আহমদ আফছর, আব্দুল লতিফ সরকার, হাফিজ মাওলানা জামিল আহমদ। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, গোলাপগঞ্জ পৌরসভা বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বাহক সভাপতি ছালিক আহমদ চৌধুরী,
গোলাপগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ, মাওলানা আব্দুল জলিল, শহিদুর রহমান সুহেদ, হাফিজ মাওলানা আব্দুল আহাদ, মাওলানা ফরিদ উদ্দিন, মাওলানা মুমিন আহমদ সাকিল, মিনহাজ আহমদ চোধুরী, সাদেক আহমদ। এছাড়া উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ, ভাদেশ্বর, শরীফগঞ্জ সহ বিভিন্ন ইউনিয়নে স্থানীয় তৌহিদী জনতার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here