সংবাদ ডেস্ক :

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আরও বিপাকে পাকিস্তান। এশিয়ার পরাশক্তি চীনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কারণে এরই মধ্যে ইসলামাবাদের সঙ্গ ছেড়েছে সৌদি আরব। এবার ইমরান খানের দেশকে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম দিতে নারাজ জার্মানিও। ইউরোপের এই দেশের কাছ থেকে সাবমেরিনের বিশেষ সরঞ্জাম কিনতে চেয়েছিল পাকিস্তান। যদিও সেই প্রস্তাব ইতোমধ্যে পত্রপাঠ খারিজ করে দিয়েছেন চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলো মর্কেলের নেতৃত্বাধীন কমিটি।

জানা গেছে, জার্মানির কাছ থেকে সাবমেরিনের air independent propulsion (AIP) কিনেতে চেয়েছিল পাকিস্তান। কী এই AIP?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অত্যাধুনিক এই যন্ত্রের মাধ্যমে সাবমেরিন জলের তলায় থাকাকালীন ব্যাটারি চার্জ করতে পারে। ফলে সাবমেরিনগুলো বেশিদিন জলের তলাতে থাকতে সক্ষম হয়। সাধারণ সাবমেরিনের তুলনায় কয়েক সপ্তাহ বেশি জলের তলায় থাকতে সক্ষম হয় AIP থাকা সাবমেরিনগুলো।

পাশাপাশি সাবমেরিনের ডিজেল ইঞ্জিনকে আরও বেশি ক্ষমতা দেয় এই যন্ত্র। সেই এআইপি কিনতে চেয়ে জার্মানির দ্বারস্থ হয়েছিল ইমরান খানের দেশ। যদিও গত ৬ আগস্ট মর্কেলের নেতৃত্বাধীন জার্মান ফেডারেল নিকিউরিটি কাউন্সিল সেই আবেদন খারিজ করে দেয়।

ওয়াকিবহাল মহল বলছে, মূলত পাকিস্তানের সন্ত্রাস দমনে অনীহার কারণেই ইসলামাবাদকে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম দিতে রাজি হয়নি জার্মানি। একই সঙ্গে ২০১৭ সালে কাবুলে জার্মানি দূতাবাসের কাছে ট্রাক বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ১৫০ জনের প্রাণ গিয়েছিল। সাম্প্রতিককালে এত ভয়াবহ জঙ্গি হামলা আর কোথাও ঘটেনি।

অভিযোগ উঠেছিল জঙ্গি সংগঠন হাক্কানি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে। আর এই হাক্কানি সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীকে মদত দেয় পাকিস্তান। অথচ সেই বিস্ফোরণের সঙ্গে যুক্ত অভিযুক্তদের শনাক্ত করতে সাহায্য করেনি পাকিস্তান। একের পর এক এই ধরণের ঘটনার জেরেই এবার পাকিস্তানকে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম দিতে অস্বীকার করল জার্মানি বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here