সংবাদ ডেস্ক : জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে হাওর রক্ষা বাঁধ, আগাম বন্যা মোকাবেলা এবং হাওরের ধান কাটা বিষয়ে সিলেট বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মশিউর রহমান (এনডিসি) ও সুনামগঞ্জ জেলার সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ।
মতবিনিময় সভায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সিলেট অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ নিজামুল হক ভুঁইয়া, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, সিলেট বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক শ্রীনিবাস দেবনাথ, পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান, সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শামস উদ্দিন, সুনামগঞ্জ স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, ব্যারিস্টার এম.এনামুল কবীর ইমন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাবিবুল ইসলাম, পানি উন্নয়ন বোর্ড, পওর-২ নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ সফর উদ্দিন, এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাহবুব আলম, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম, গণপুর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আল-আমিন, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ইকবাল হোসেন চৌধুরী, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ মোজাম্মেল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সুহেল মাহমুদ, অখিল কুমার সাহা, সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সুচিত্রা রায় সহ জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী অফিসারবৃন্দ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী দুই সপ্তাহে সুনামগঞ্জে বৃষ্টিপাতসহ আগাম বন্যার আশংকা থাকায় সুনামগঞ্জের বিস্তীর্ণ হাওরাঞ্চলে উৎপাদিত ধান বিনষ্ট হওয়া এবং হাওরাঞ্চলে উৎপাদিত ধান রক্ষা করা না গেলে ভবিষ্যতে খাদ্য সংকট দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে মর্মে সভায় অংশগ্রহণকারীগণ আশংকা প্রকাশ করেন। চলমান করোনা ভাইরাস জনিত পরিস্থিতিতে উদ্ভূত ধান কাটা শ্রমিক সংকটের বিষয়ে সভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়। বিস্তারিত আলোচনান্তে উত্তরবঙ্গসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ধান কাটা শ্রমিকদের পরিবহনের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানের পদক্ষেপ গ্রহণ, শ্রমিকগণের ন্যায্য মজুরী প্রাপ্তি নিিশ্চত করণ, অস্বচ্ছল শ্রমিকদের ত্রাণসামগ্রী প্রদান, অন্যান্য পেশায় নিয়োজিত শ্রমিক যেমনঃ পরিবহন শ্রমিক, বারকি শ্রমিক, ভ্রাম্যমাণ হকার, রিক্সা ও অটো চালক সহ অন্য কর্মজীবী যারা এখন কর্মহীন রয়েছেন তাদের ধানকাটায় নিয়োজিত করার সিদ্ধান্ত হয়।
সুনামগঞ্জ জেলার যেসব এলাকার ধান কাটার উপযুক্ত হয়েছে, অন্য এলাকার কম্বাইন্ড হারভেস্টর এবং রিপার মেশিন সেসব এলাকায় প্রেরণের ব্যবস্থা করণের সিদ্ধান্ত হয়।
ধান কাটার শ্রমিক সংকট মোকাবেলায় স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার লোক, আনসার, গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্য, ছাত্র, শিক্ষক, রাজনৈতিক দলের কর্মীগণ ধানকাটায় অংশগ্রহণ করবেন মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
ধান কাটা কার্যক্রম নিবিড়ভাবে তত্ত্বাবধানের জন্য জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে মনিটরিং টিম গঠন করে জেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের দায়িত্ব অর্পণ করা হয়। সভায় উপস্থিত সকলে সুনামগঞ্জ জেলায় উৎপাদিত ফসল সম্মিলিতভাবে দ্রুততম সময়ে আহরণের দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here