সংবাদ ডেস্ক :

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে পুরো ভারতজুড়ে লকডাউন ঘোষণার পর সেখানে আটকে পড়াদের মধ্যে ১৬৪ বাংলাদেশি নাগরিক দেশে ফিরেছেন।

সোমবার ঢাকাস্থ নয়া দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশন এক বার্তায় এই তথ্য জানিয়েছে।

চেন্নাই থেকে এসব বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে এনেছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান। এয়ারলাইন্সটির জনসংযোগ কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম ঢাকা টাইমসকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কামরুল ইসলাম জানান, বিমানটি ৩টা ৪৫ মিনিটে ঢাকায় অবতরণ করেছে।

হাইকমিশনের বার্তায় জানানো হয়, নয়া দিল্লিস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন তথা বাংলাদেশ সরকারের উদ্যোগ ও সহযোগিতায় আকাশপথে চেন্নাই থেকে দেশে ১৬৪ জন বাংলাদেশি আজ দেশে প্রত্যাবর্তন করেছেন। নিয়ম অনুযায়ী ভারত থেকে দেশে ফেরত ১৬৪ জনকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী কয়েক দিনের মধ্যে কয়েকটি ফ্লাইট ভারতে চিকিৎসার জন্য যাওয়া বাংলাদেশি নাগরিকরা চেন্নাই হয়ে দেশে ফিরতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করছে হাইকমিশন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গত ২৪ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সারা দেশে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন। এতে দেশটির বিভিন্ন শহরে আটকা পড়েন ২৫০০ বালাদেশি নাগরিক। করোনাভাইরাস ঠেকাতে ভারতের লকডাউন ব্যবস্থা গত ১৪ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় আরও নয় দিনের জন্য তথা আগামী ৩ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

নয়া দিল্লির ঢাকাস্থ মিশনের বার্তায় আরও জানানো হয়, বর্তমানে তামিলনাড়ু ও কর্নাটকে আটকে থাকা অসুস্থ ও প্রবীণদের আকাশপথে দেশে ফেরার জন্য অনুমোদন পাওয়া গেছে ও তাদের প্রত্যাবর্তন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

পর্যায়ক্রমে বাকি সকল রাজ্য থেকে প্রত্যাবর্তনে আগ্রহীদের দেশে ফেরানোর জন্য দূতাবাস সার্বক্ষণিকভাবে কাজ করছে বলেও বার্তায় উল্লেখ করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here