আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হয়েছে তীব্র তাপদাহ এবাং দাবানল। গতকাল (২১ ডিসেম্বর) দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া একটু শীতল থাকায়, দমকল বাহিনী কিছুটা স্বস্তিতে ছিলো। তবে সপ্তাহের শেষের দিকে দেশটির তাপমাত্রা ও দাবানল আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন ছুটি কাটিয়ে এসে সিডনীর দমকল বাহিনীর সদরদপ্তর পরিদর্শন করেছেন। এর আগে, তিনি হাওয়াইতে ছুটি কাটাতে যান। দেশের বিপর্যয়ে ছুটিতে যাওয়ায় তাকে জনগণের রোষানলে পড়তে হয়। পরে দুই দমকলকর্মীর মৃত্যু হলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, “আমি আমার ছুটি সংক্ষিপ্ত করবো।”

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যায়, নিউ সাউথ ওয়েলস, ভিক্টোরিয়া এবং দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার দাবানল রাতারাতি কমে আসে। শুক্রবার এবং শনিবারও দাবানল অনেকটা নিয়ন্ত্রণে ছিলো।

তবে, কিছু কিছু এলাকার আগুন এতোটাই তীব্র ছিলো যে, সেগুলো থেকে বজ্রপাতের সৃষ্টি পর্যন্ত হয়েছিলো।

নিউ সাউথ ওয়েলসের কমিশনার বলেন, “এখনও অনেক এলাকাজুড়ে আগুন ছড়াচ্ছে। সিডনির পশ্চিমের ব্লু মাউন্টেইন এলাকার প্রায় ১০০ কিলোমিটার (৬২ মাইল) এলাকাজুড়ে দাবানলের আগুন ও তীব্র ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়েছে।”

তিনি আরও  বলেন, “দাবানলে আমাদের প্রচুর ক্ষতি হয়েছে। ফসলের অনেক মাঠ পুড়ে গেছে। আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছি এবং তার ফলও পাচ্ছি।”

অস্ট্রেলিয়ার দমকল বাহিনী এক টুইটবার্তায় জানায়, গতকাল নিউ সাউথ ওয়েলসে ১০৫টি দাবানলের আগুন জ্বলছিলো। এর মধ্যে ৫৯টি দাবানলের আগুন খুবই তীব্র ছিলো।

ওই টুইটবার্তায় আরও বলা হয়, “দমকল বাহিনী দাবানল নিয়ন্ত্রণে প্রতিদিনই কাজ করে যাবে এবং প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেবে।”

গতকাল আগুন নিয়ন্ত্রণের সময় এক দমকল কর্মী নিখোঁজ হন। এখনও তার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। সেদিন পশ্চিম সিডনির শহর লিথগোর অনেক এলাকা জুড়ে দাবানলের আগুন ছড়িয়ে পড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here