সংবাদ ডেস্ক :: সারাদেশের মতো সিলেটেও ডেঙ্গু রোগ বিস্তার লাভ করেছে। সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এ পর্যন্ত ২৭ জন ডেঙ্গু রোগী চিহ্নিত হয়েছেন।

এছাড়া সিলেটের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন অনেক ডেঙ্গু রোগী।

ওসমানী হাসপাতালের নিচতলার ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের একটি অংশ ডেঙ্গু আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। সেখানে ভর্তি রয়েছেন ২৭ জন রোগী। আক্রান্তদের মশারি টানিয়ে রাখা হয়েছে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আবু কামরান রাহুল জানান, এসব রোগীরা সবাই ঢাকায় ছিলেন। সেখানে থেকে তারা ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে এসেছেন। রোগ চিহ্নিত হওয়ার পর তাদেরকে এখানে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এদিকে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় সিলেটের সিভিল সার্জন বিশেষ সর্তকতা জারি করেছেন।

তিনি বলেন, সিলেটে যাতে ডেঙ্গু রোগ মহামারি রূপ না নিতে পারে সেজন্য জনসাধারণের সচেষ্ট হওয়া একান্ত প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সিলেট ডেঙ্গু প্রদ্যোষিত এলাকার অন্তর্ভুক্ত হওয়ার আশংকা থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সিলেটের সিভিল সার্জনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

সিলেট সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে সার্বক্ষণিক কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়েছে। সিভিল সার্জনের আওতাধীন সকল স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে ডেঙ্গু ব্যবস্থাপনা ও ডেঙ্গু বিষয়ে মনিটরিং সেল গঠন করে মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের সার্বক্ষণিক সতর্ক পর্যবেক্ষণ ও তথ্য সংগ্রহ করার নির্দেশনা প্রদান  করা হয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮ টি বেড সংরক্ষণ করে ডেঙ্গু কর্নার চালু করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু ব্যবস্থাপনার জন্য ২ টি বেড সংরক্ষণ রাখা হয়েছে।

দেশের সকল সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেনারেল হাসপাতাল ও জেলা হাসপাতালসমূহে বিনামূল্যে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ ও চিকিৎসা প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সরকার কর্তৃক সকল বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডেঙ্গু শনাক্তকরণের পরীক্ষাসমূহের ফি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। ডেঙ্গু শনাক্তকরণ ও চিকিৎসার জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে চিকিৎসকদের প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়া সকল হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ ও চিকিৎসার জন্য ওয়ান স্টেপ সার্ভিস চালু করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সিভিল সার্জনের উদ্যোগে সারা শহরব্যাপী ডেঙ্গু প্রতিরোধ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মাইকিং, সিভিল সার্জন সিলেট ও মেয়র সিলেট সিটি করপোরেশনের যৌথ উদ্যোগে শহরব্যাপী ডেঙ্গু বিষয়ক ডিজিটাল ব্যানার ও বিলবোর্ড স্থাপন করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের উদ্যোগে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও মশা নিধন কর্ম সপ্তাহ উদ্বোধন করা হয়েছে। বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্রের মাধ্যমে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বিশেষ ঘোষণা প্রচার ও বিভিন্ন স্থানে ডেঙ্গু প্রতিরোধ বিষয়ে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সিলেটের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ নুরে আলম শামীম বলেন, প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম সিলেটে ডেঙ্গু রোগী নেই বা এই রোগটা ছড়াবে না। কিন্তু ঢাকা থেকে অনেকেই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সিলেটে আসছেন। গত কয়েকদিনে সরকারি বেসরকারি অনেক হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছেন, চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সরকারি হাসপাতালসমূহে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ মেশিন না থাকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সকল সরকারি হাসপাতালেই ডেঙ্গু শনাক্তকরণ মেশিন পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যে সকল সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ মেশিন নেই অল্প সময়ের মধ্যেই সে সকল হাসপাতালে মেশিন দেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here