সংবাদ ডেস্ক : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, সিলেটে আগামী দুই মাসের মধ্যে ভারতীয় হাইকমিশনের শাখা অফিস হবে। এখান থেকেই সিলেটের লোকজন সহজে ভিসা নিতে পারবেন। তাদেরকে আর ঝামেলা পোহাতে হবে না।

শুক্রবার দুপুরে সিলেটের কাজলশাহ এলাকায় আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইসকন) মন্দির আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল। সে সময় হাতে হাত মিলিয়ে যুদ্ধ করেছিল ভারতীয় সেনারাও। এখনও বাংলাদেশের প্রতি ভারতের সেই ভালো বাসা অব্যাহত আছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আছে সেটি দিন দিন আরও উন্নত হচ্ছে। দুই দেশই জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে একযোগে কাজ করছে।

ইসকন সিলেটের অধ্যক্ষ নবদ্বীপ দ্বিজ গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ইসকন বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক চারুচন্দ্র দাস ব্রহ্মচারী, ভারতীয় হাইকমিশনের কমার্শিয়াল সেকেন্ড সেক্রেটারি শিশির কটারী, সিলেটের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক দেবজিৎ সিনহা, যুগলটিলা আখড়া কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট দেবাশীষ সেন, ইসকন বাংলাদেশের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জগৎগুরু গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারী, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. হিমাদ্রী শেখর রায়, বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস জার্নালিস্ট কমিশনের সভাপতি ফয়সল আহমদ বাবলু।

এর আগে ভারতীয় হাইকমিশনার সিলেট ইসকন মন্দিরের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড ঘুরে দেখেন। ভারতের অর্থায়নে ইসকন মন্দিরের নির্মাণাধীন ছাত্রাবাসের জন্য এক কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করেন। তিনি পুরো ভবন নির্মাণের জন্য সাত কোটি টাকা দেয়ারও আশ্বাস দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here